1. admin@updatedbarta24.com : admin :
ভুল কোডের প্রশ্ন পএ সরবরাহ একই বিষয়ে দুইবার পরীক্ষা - Updated Barta 24
বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চাঁদপুর হাইমচর আলগী উঃ ইউনিয়ন নৌকার মাঝি আতিক পাটওয়ারী ফুলে ফুলে শিক্ত নালিতাবাড়িতে মানুষ -হাতি দ্বন্দ্ব নিরসনে সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁর পত্নীতলায় সাংবাদিক হামলার ঘটনায় মানববন্ধন হাইমচর নীলকমলে চার বারের সফল মেম্বার খলিল মাতব্বর পুনরায় মেম্বার পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল হাইমচরে আলগী উঃ ইউনিয়নে সাবেক মহিলা মেম্বার রছুমা বেগম পুনরায় মেম্বার পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের গেজেট প্রকাশ নওগাঁর মান্দায় সরিষা খেতে চাষ হচ্ছে ভ্রাম্যমান মৌচাষের মাধ্যমে মধু নওগাঁর মান্দায় অভ্যন্তরীণ আমন ধান ও চাল সংগ্রহের উদ্বোধন বেলকুচিতে বেকার যুবক ও যুব মহিলাদের দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সমাপনীঃ জনগনের পবিত্র আমানত জনগণের হাতে পৌঁছে দেওয়াই হবে আমার দায়িত্ব …….. মোঃ নাজিম উদ্দীন পাটওয়ারী

ভুল কোডের প্রশ্ন পএ সরবরাহ একই বিষয়ে দুইবার পরীক্ষা

মোঃ সোহাগ উদ্দিন ইমন মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী)
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৩ বার পঠিত

ভুল কোডের প্রশ্ন পএ সরবরাহ একই বিষয়ে দুইবার পরীক্ষ পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনস্থ সুবিদখালী সরকারি রহমান ইসহাক পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে একই বিষয়ে দুইবার পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

সোমবার (১৫ ই নভেম্বর) ওই কেন্দ্রে বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা (বিষয় কোড-১৫৩) বিষয়ের পরীক্ষায় ভুল সেট কোডের প্রশ্ন দিয়ে পরীক্ষা নেয়া হয়। পরীক্ষা শুরু হওয়ার একঘন্টা পর ভুল সেট কোডের প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ার বিষয়টি কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। পরে ওই প্রশ্ন প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের নির্ধারিত সেটকোডের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। এতে পরীক্ষা আশানুরুপ না হওয়ায় পরীক্ষার্থী, অভিভাবক ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

পরীক্ষার্থী ও অভিভাবক সূত্রে জানাযায়, মির্জাগঞ্জ উপজেলার সুবিদখালী সরকারি রহমান ইসহাক পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভেন্যুতে সকাল ১০টায় যথারীতি বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা বিষয়ের পরীক্ষা শুরু হয়। এতে ১৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৯১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। ওইদিন ওই কেন্দ্রে সেটকোড-৩ এর প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও ভুলে পরীক্ষার্থীদের সরবরাহ করা হয় সেটকোড-১ এর প্রশ্নপত্র। পরীক্ষা প্রায় শেষের দিকে কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের নিকট এ ভুলটি ধরা পড়লে তারা তড়িঘড়ি করে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ভুল প্রশ্নপত্র তুলে নিয়ে পুনরায় নির্ধারিত (সেটকোড-৩) কোডের প্রশ্ন সরবরাহ করে সময় বাড়িয়ে পরীক্ষা নেয়া হয়। পরপর একই বিষয়ে দু’বার পরিক্ষা দেয়ায় শ্ক্ষিার্থীদের মধ্যে অনেকেই মানষিকভােবে ভেঙ্গে পড়েছে। তারা তাদের রেজাল্ট নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে বলে জানায়।

পরীক্ষা শেষে পরীক্ষার্থী মো.আরিফুল ইসলাম, মো. আব্দুল্লাহ, তারিকুল ইসলাম সহ কয়েক জন পরীক্ষার্থী বলেন,‘পরীক্ষা প্রায় শেষ খাতা জমা দেব এই মুহুর্তে আমাদের খাতা বাতিল করে নতুন করে প্রশ্নপত্র দিয়ে পুনরায় পরীক্ষা নিয়েছে দায়িত্বরত শিক্ষকরা। আমরা কিছুই বুঝতে পারলাম না। কেন একই বিষয়ে একই দিনে দু’বার আমাদের পরীক্ষা দিতে হলো। কেউ কেউ বলছে প্রথমবার ভালো পরীক্ষা দিয়েছি কিন্তু দ্বিতীয়বার নতুন প্রশ্নে পরীক্ষা বেশি ভালো হয়নি তাই রেজাল্ট আশানুরুপ হবে না।
পরীক্ষা কেন্দ্রের ফটকে অপেক্ষারত একজন অভিভাবক মো. হানিফ মুন্সী বলেন, ‘আমার মেয়ের পরীক্ষা ১০টায় শুরু হয়ে সাড়ে এগারোটায় শেষ হওয়ার কথা কিন্তু এখন সাড়ে ১২টা বেজে গেছে সে(মেয়ে) হল থেকে বের হচ্ছে না। শুনলাম একই পরীক্ষা নাকি দু’বার নেয়া হচ্ছে।’

সুবিদখালী রোকেয়া খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. গোলাম সরোয়ার বলেন,‘আমার প্রতিষ্ঠানের ২৫জন শিক্ষার্থী ওইদিন ওই বিষয়ে অংশ গ্রহণ করেছে। একই কেন্দ্রের অধীনে দুটি ভেন্যু আরকে বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সুবিদখালী রহমান ইসহাক মাধ্যমিক বিদ্যালয়। এর মধ্যে একটি কেন্দ্রে ভুল কোডের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করায় কারণে দু’বার পরীক্ষা দিতে হলো শিক্ষার্থীদের। এতে পরীক্ষার ফলাফলেও প্রভাব পড়বে। এই ভুলের দায় আসলে কে নেবে জানিনা।’

সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের সচিব আব্দুল জলিল সাংবাদিকদের বলেন, ‘এসএসসি পরীক্ষায় ওইদিন বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা বিষয়ে সঠিক সময়ে সঠিক কোডেই পরীক্ষা শুরু হয়। তবে লিখিত (সৃজনশীল) পরীক্ষায় ভুলে সেটকোড-৩ এর পরিবর্তে সেটকোড-১ এর প্রশ্ন দেয়া হয়েছিল কিন্তু কয়েক মিনিটের মধ্যেই আবার ভুলপ্রশ্ন এবং খাতা তুলে নিয়ে সঠিক প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। এতে তেমন কোন সমস্যা হয়নি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসাঃ তানিয়া ফেরদৌস বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। এ ব্যাপারে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে দায়ীদের বিরুদ্ধে।

মির্জাগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় ২০২১ সালে এসএসসি পরীক্ষায় সর্বমোট ২২১২ জন, মাদ্রাসার দাখিল পরীক্ষায় ৫১৮জন এবং ভোকেশনাল থেকে ২২৪জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এরমধ্যে কাঁঠালতলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ৬২৯ জন এবং সুবিদখালী সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ৮৪১ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা