1. admin@updatedbarta24.com : admin :
বদলগাছীতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান স্বপনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে দুদকের অভিযান। - Updated Barta 24
বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চাঁদপুর হাইমচর আলগী উঃ ইউনিয়ন নৌকার মাঝি আতিক পাটওয়ারী ফুলে ফুলে শিক্ত নালিতাবাড়িতে মানুষ -হাতি দ্বন্দ্ব নিরসনে সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁর পত্নীতলায় সাংবাদিক হামলার ঘটনায় মানববন্ধন হাইমচর নীলকমলে চার বারের সফল মেম্বার খলিল মাতব্বর পুনরায় মেম্বার পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল হাইমচরে আলগী উঃ ইউনিয়নে সাবেক মহিলা মেম্বার রছুমা বেগম পুনরায় মেম্বার পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের গেজেট প্রকাশ নওগাঁর মান্দায় সরিষা খেতে চাষ হচ্ছে ভ্রাম্যমান মৌচাষের মাধ্যমে মধু নওগাঁর মান্দায় অভ্যন্তরীণ আমন ধান ও চাল সংগ্রহের উদ্বোধন বেলকুচিতে বেকার যুবক ও যুব মহিলাদের দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সমাপনীঃ জনগনের পবিত্র আমানত জনগণের হাতে পৌঁছে দেওয়াই হবে আমার দায়িত্ব …….. মোঃ নাজিম উদ্দীন পাটওয়ারী

বদলগাছীতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান স্বপনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে দুদকের অভিযান।

গোলাম রাব্বানী, নওগাঁ জেলার প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৪২ বার পঠিত

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার ৫নং কোলা ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ শাহিনুর ইসলাম (স্বপন) এর বিভিন্ন প্রকল্প অনিয়ম ও দুনীতির বিরুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াজেদ আলী এবং কোলা ইউনিয়নের অর্ধশতাধিক ব্যক্তি কর্তৃক চেয়ারম্যান দৃর্নীতি দমন কমিশন, এর নিকট ০৮/৩/২০২১ এবং ১০/৩/২০২১ ইং তারিখে করা অভিযোগ এর ভিত্তিতে দুদক রাজশাহীর তিন সদস্য বিশিষ্ট এনফোর্সমেন্ট টিম প্রকল্পগুলি ১০ /১১/২০২১ ইং বুধবার তদন্ত করেন বলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুবুর রহমান ও প্রকল্প সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী এবং অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াজেদ আলীর ভাষ্যে জানা গেছে। দুর্নীতি দমন কমিশন, রাজশাহী অফিসের সহকারী পরিচালক মোঃ আল আমিনের নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি এনফোর্সমেন্ট টিম প্রকল্পগুলো তদন্ত করেন। অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াজেদ আলী বলেন দুর্নীতি দমন কমিশন , রাজশাহীর উপ-পরিচালক শ্রী সুদ্বীপ চৌধুরী ০৯/১১/২০২১ ইং বৈকাল আনুমানিক ৫ ঘটিকায় ০১৭২৩ ৯৮৯০৬৯ নম্বর মোবাইল ফোন থেকে তাকে বলেন ১০/১১/২০২১ ইং তারিখ বেলা ১১টা পর্যন্ত ঝাড়ঘরিয়া গ্রামের মরহুম
অছিম উদ্দিন ঈদগাহ মাঠ ও অন্যান্য প্রকল্পগুলি তদন্ত করার জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়, রাজশাহীর সহকানী পরিচালক মোঃ আল আমিন এর নের্তৃতে তিন সদস্য বিশিষ্ট এনফোর্সমেন্ট টিম যাবে। জন্যই ঐ তারিখ ও সময় পর্যন্ত তাকে উক্ত গ্রামে থাকতে বলেন।

কিন্তু ১২ টা পর্যন্ত উক্ত টিম না আসায় তিনি জরুরি কাজে অন্যত্র চলে যান। এর পর থেকে এনফোর্সমেন্ট টিম তাকে তদন্তকালে থাকার জন্য মোবাইল ফোনে বা অন্য কোনভাবেই অবগত করেননি। তদন্তকারী টিম ঝাড়ঘরিয়া মরহুম অছিম উদ্দিন ঈদগাহ মাঠে মাটি ভরাট প্রকল্প (যার বরাদ্দ ৩ লাখ) সহ বিভিন্ন অর্থ বছরে বরাদ্দকৃত ৭টি প্রকল্প, পার-আধাইয়পুর আকবরের মোড় থেকে রোস্তমের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা সিসি ঢালাই প্রকল্প (যার বরাদ্দ ২ লাখ টাকা), ভান্ডারপুর তরকারী হাটি ইট সোলিং প্রকল্প (যার বরাদ্দ ২ লাখ টাকা), ভান্ডারপুর এনসিডিপির উত্তর মাথা হতে কাপড় পট্টির দক্ষিণ মাথা পর্যন্ত রাস্তা সিসি ঢালাই প্রকল্প (বরাদ্দ ২ লাখ টাকা), কোলা হাটের শহিদুল মেকারের দোকান থেকে জিন্নার দোকান পর্যন্ত রাস্তা আরসিসি ঢালাই প্রকল্প (যার বরাদ্দ ২ লাখ টাকা), কোলা হাটের তরকারী হাটির পুর্ব সাইডে মেঝে ঢালাই প্রকল্প (বরাদ্দ ২ লাখ টাকা) ও পশ্চিম সাইডের মেঝে ঢালাই প্রকল্প (যার বরাদ্দ ২ লাখ টাকা), কোলা হাটের গোস্তহাটি ২ টি সেড ও মাছের হাটের ২ টি সেডের মেঝে ঢালাই এবং টিওবয়েল মেরামত প্রকল্প (বরাদ্দ ১ লাখ ৯৮ হাজার টাকা), কোলা বাজারে ২টি সেড,হাটের অফিস মেরামত ও রং করণ প্রকল্প (বরাদ্দ ২ লাখ টাকা) তদন্ত করেন বলে এলাকাবাসী বলেন। পারআধাইপুর আকবরের মোড় হতে রোস্তমের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা সিসি ঢালাই প্রকল্প এনফোর্সমেন্ট টিম কর্তৃক তদন্তকালে সাবল নিয়ে সিসি ঢালাই খুঁড়ে দেখতে ও জানতে পারেন সাড়ে ৪ ইঞ্চির স্থলে ১ইঞ্চি ঢালাই ১শ ফিট রাস্তায় দেওয়া হয়েছে বলে এনফোর্সমেন্ট টিম উপস্থিত জনতার সামনে বলেন বলে পার-আধাইপুর গ্রামের মৃত দূলব এর ছেলে মোঃ আলতাব হোসেন এবং একই গ্রামের মৃত মজির উদ্দিন মন্ডলের ছেলে মোঃ শহিদুল ইসলাম সহ উপস্থিত কতিপয় এলাকাবাসী জানান। অভিযোগের আওতাধীন ভান্ডারপুর ও কোলা হাটের প্রকল্পগুলো তদন্তকালে অনিয়ম ও দুর্নিিতর প্রমান তদন্তকারী উক্ত টিম পান বলে এলাকাবাসী জানান এবং ঝাড়ঘরিয়া মরহুম অছিম উদ্দিন ঈদগাহ মাঠের মাটি ভরাট সহ অন্যান্য সময়ের অনুমোদিত ও বরাদ্দকৃত প্রকল্পগুলো তদন্ত করেন। চকতাহের টুকুর বাড়ীর সামনে ইউড্রেন নির্মাণ প্রকল্প তদন্ত করে ইউড্রেন নির্মাণ করার কোন আলামত পাননি বলে কোলা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল জলিল সহ কতিপয় গ্রামবাসী বলেন। উপ পরিচালক সুদিব রায় চৌধুরীরসঙ্গে মোবাইল ফোনে অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধাকে তদন্তকালে না রাখার বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি ভুল হয়েছে বলে জানান। এনফোর্সমেন্ট টিমের প্রধান সহকারী পরিচালক মোঃ আল আমিনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে তাকে অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াজেদ আলীকে তদন্তকালে না রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে তদন্তকালে উত্তেজনা সুষ্টি হতে পারে ভেবে এবং মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সম্মান দেওয়ার কারণে তাকে তদন্তকালে রাখা হয়নি বলে তিনি জানান।এছাড়াও তিনি বলেন একজন নিরপেক্ষ প্রকৌশল দ্বারা অভিযোগ সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের পরিমাপ করা হয়েছে। উন্নয়ন সংক্রান্ত সমস্থ নথিপত্র সংগ্রহ করেছে। প্রকল্প দৃশ্যমান হলেও কতটুতু কাজ হয়েছে তা যাচাইয়ের জন্য সকল তথ্য বিশ্লেষণ পুর্বক প্রকৌশলীর মতামত প্রয়োজন। এ ব্যাপারে প্রাপ্ত তথ্য প্রমাণ ও বিশেষজ্ঞ মতামতের ভিত্তিতে নিরপেক্ষভাবে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশসহ
কমিশন বরাবর প্রতিবেদন দাখিল করবে এনফোর্সমেন্ট টিম।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো শাহীনুর ইসলাম স্বপন বলেন, দুদকের একটি দল এসেছিল।তারা তথ্য উপাত্ত নিয়ে গেছে। মুলত একটি গোষ্ঠী আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্ঠা করছে। জনসংযোগ বিভাগের সহকারী পরিচালক মো শফিউল্লাহ বলেন,তথ্য যাচাই হচ্ছে,তারা দু এক দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার কথা আছে,পেলেই অভিযোগকারী সহ আপনাদের জানানো হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা